বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫৯ অপরাহ্ন

নারীদের মধ্যে যে লক্ষনটি থাকলে যমজ সন্তান হওয়ার প্রবনতা থাকে, এটা পরীক্ষিত ও প্রমানিত!

নারীদের মধ্যে যে লক্ষনটি থাকলে যমজ সন্তান হওয়ার প্রবনতা থাকে, এটা পরীক্ষিত ও প্রমানিত!

সকল মেয়েই অনুভব করতে চায় মাতৃত্বের স্বাদকে। এর জন্মদানের জন্য দায়ী হয়ে থাকে বেশকিছু ধরনের ফ্যাক্টর বা বিষয় গুলি। সন্তান জন্ম নেয় সেই সমস্ত ফ্যাক্টর গুলি থাকে বলেই। এর পাশাপাশি যমজ সন্তান সম্বন্ধে আমাদের কৌতুহল জেগেছে। জমজ সন্তানদের প্রতি আমাদের কৌতুহল দেখা যায় তাঁর প্রধান কারণ যমজ সন্তান একই হয় দেখতে এবং তার পাশাপাশি তাদের কার্যকলাপ প্রায় একই ধরনের হওয়ায়।

বেশ কিছু ফ্যাক্টর আগে থেকে ঠিক হয়ে থাকে যমজ সন্তান জন্মানোর ক্ষেত্রে। আমরা অনেকেই জানি না যে সন্তান জন্মানোর ক্ষেত্রে যেসব ফ্যাক্টর গুলি লুকিয়ে থাকে তাঁর ব্যাপারে। তাই আজকে আমরা সেইসব ফ্যাক্টর গুলি তুলে ধরার চেষ্টা করবো আমাদের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে।

যমজ সন্তান জন্মের হার আগের থেকে অনেক বেড়ে গেছে, সম্প্রতি এমনটাই জানা গেছে এক পরিসংখ্যান থেকে। ৭৬ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ১৯৮০ থেকে ২০০৯ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী। সদ্যভূমিষ্ঠ প্রতি ৫৩ শিশুর মধ্যে একজন যমজ শিশু লক্ষ্য করা যেত ১৯৮০ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী।

কিন্তু ২০০৯ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রতি ৩০ জনের মধ্যে একজন সন্তান জমজ জন্ম হয়। সম্প্রতি ‘জার্নাল অব রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন’ গবেষণা করছেন যমজ সন্তানের মায়েদের উপর।

শুনলে আপনি হয়তো অবাক হবেন এমনই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য খুঁজে পাওয়া গেছে এই গবেষণা থেকে। যমজ সন্তান ধারণের জন্য মায়ের উচ্চতা এক বড়োসড়ো ফ্যাক্টর হয়ে উঠতে পারে গবেষণার মাধ্যমে এমনটি জানিয়েছেন জার্নাল অফ রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন।

যমজ সন্তান জন্মের ক্ষেত্রে মেয়েদের উচ্চতা বিশেষ কারণ হয়ে ওঠার একমাত্র কারণ হল গ্রোথ-ফ্যাক্টর। এই গ্রোথ ফ্যাক্টর যমজ সন্তান জন্মের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে সাহায্য। এই গ্রোথ-ফ্যাক্টর আসলে একধরনের ইনসুলিন নামক প্রোটিন। বোন সেল বৃদ্ধিকে তরান্বিত করে এই ইনসুলিন। এবং এই ইনসুলিনকে নিয়ন্ত্রণ করতে দেখা যায় মেয়েদের লম্বা হবার প্রবণতা ও যমজ সন্তান জন্মদানের বিষয়টিকে।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com