তিনি হাসপাতালের ৩ তলায় ওঠেন মোটরসাইকেল চালিয়ে! - বাংলা একাত্তরতিনি হাসপাতালের ৩ তলায় ওঠেন মোটরসাইকেল চালিয়ে! - বাংলা একাত্তর

বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন

তিনি হাসপাতালের ৩ তলায় ওঠেন মোটরসাইকেল চালিয়ে!

তিনি হাসপাতালের ৩ তলায় ওঠেন মোটরসাইকেল চালিয়ে!

লালমনিরহাটের সদর হাসপাতালের শাহজাহান আলী নামের এক ওয়ার্ড বয় মোটরসাইকেল চালিয়ে তিনতলায় উঠতে দেখা গেছে। এ সময় প্রথম ও দ্বিতীয় তলার বৃদ্ধ ও শিশু রোগীরা আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করে। অনেক রোগী ভয়ে বেড থেকে উঠে বেরিয়ে যায়। পরে হাসপাতালের লোকজনের অনুরোধে তারা আবার বেডে ফিরে যান। শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে সার্জারি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। এটা ঠিক না বলতেই তিনি রোগীর অভিভাবকদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন।

পরে অবশ্য বিষয়টি বুঝতে পেরে তিনি রোগীদের কাছে ক্ষমা চান। তবে রোগীর স্বজনরা জানান, তিনি সব সময় ডিউটিতে আসার সময় এটা করেন।শাহজাহান আলী লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে সার্জারি বিভাগের ওয়ার্ড বয় হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি সদর উপজেলার পঞ্চগ্রামের সাহেবের ছেলে।

হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগী ও স্বজনরা আরও জানান, শুক্রবার রাত ৮টার দিকে হাসপাতালের দায়িত্ব পালন করতে সদর হাসপাতালে আসেন ওয়ার্ড বয় শাহজাহান আলী। তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি নিচতলার গ্যারেজে না রেখে চালিয়ে হাসপাতালের সিঁড়ি দিয়ে তিনতলায় উঠে পড়েন। এ সময় হাসপাতালের সার্জারি বিভাগসহ আশপাশের রোগীরা বাধা দিলেও তিনি তোয়াক্ক না করে মোটরসাইকেল নিয়ে ওপরে ওঠেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রোগী বলেন, তিন-চার দিন হলো সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। এই ওয়ার্ড বয় (শাহজাহান আলী) যেদিন দায়িত্বে থাকেন, সেদিন তিনি হেঁটে ওঠেন না, মোটরসাইকেল চালিয়ে ওপরে ওঠেন। এতে উচ্চশব্দে রোগীরা মনে করে ভবনটি ভেঙে পড়ছে। এতে তারা আরও অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিশেষ করে হৃদরোগীরা ভয় পান বেশি। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিয়ে কোনো খেয়াল করছে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ার্ড বয় শাহাজান আলী মুঠোফোনে বলেন, মোটরসাইকেল নিচতলায় রাখলে অনেকেই ক্ষতি করেন। তাই ওপরে নিয়ে এসেছি। রোগীরা অভিযোগ করলে তাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে আমি অনেক লজ্জা পেয়েছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের ভুল করবেন না বলেও তিনি জানান। এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় ঢাকা পোস্টকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তত্ত্বাবধায়কের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। এ ব্যাপারে আমার কোনো মন্তব্য নেই।

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সিরাজুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়তই চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিন্তু কিছু লোক নিয়মের বাইরে কাজ করে পরিবেশ নষ্ট করছে। শাহজাহান আলী মাস্টার রোলে কাজ করেন। যদি এমন কাজ করে থাকেন, অবশ্যই তার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com