মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

মেলায় ১ মাছের দাম ১ লাখ ৫ হাজার টাকা

মেলায় ১ মাছের দাম ১ লাখ ৫ হাজার টাকা

বগুড়ার পোড়াদহ মেলায় প্রতি বছরের মতো এবারো বড় মাছ ও মিষ্টি কেনা-বেচায় উৎসবের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার একই জায়গায় অনুষ্ঠিত হবে বউ মেলা। এ মেলার সবচেয়ে বড় মাছ ছিল বাঘাইর। মাছটির ওজন ছিল ৭৬ কেজি। এ মাছটি বিক্রি করা হয়েছে এক লাখ পাঁচ হাজার টাকায়।

সরেজমিনে মেলায় ঘুরে দেখা যায়, রাফিউল। বয়স ৯ বছর। পোড়াদহ মেলায় এসেছে সব থেকে বড় মাছটি কিনতে। বাবার হাত ধরে মেলার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে খোঁজ করছে সব থেকে বড় মাছটি। রয়েছে মানুষের ভীড়। সবাই বলা-বলি করছে মাছ নয়, এটি তিমি। মাছটির বিশাল মাথা, হা করা মুখের চারপাশ দিয়ে বের হয়েছে দাতগুলো। মাথাটা বেশ কালো। সিরাজগঞ্জ থেকে আসা সাকাত হোসেনের ৭৬ কেজির বাঘাইর মাছটি দেখতে হাজার হাজার মানুষ ভীড় করে। তিনি এক লাখ পাঁচ হাজার টাকায় মাছটি বিক্রি করেছেন বলে জানান।

এ মেলায় নজর কেড়েছে ৬০ কেজি ওজনের যমুনা নদীর বিশাল বাঘাইর মাছটিও। মাছ ব্যবসায়ী শুকুর আলী মাছটির দাম চেয়েছেন ৯০ হাজার টাকা। হরেক রকমের মাছের মধ্যে মেলায় এবার স্থান পেয়েছে তিন কেজি ওজনের মিষ্টিও। মিষ্টিগুলোর আকৃতি ঠিক মাছের মতো। মিষ্টি বিক্রেতা জানান, তিনি মাছ আকৃতির তিন কেজি মিষ্টি তৈরি করেছেন। এ ছাড়া তিনি আধা কেজি থেকে শুরু করে বিভিন্ন ওজনের মাছ আকৃতির মিষ্টি বিক্রি করেন। মিষ্টি বিক্রি হয়েছে ৩০০ টাকা কেজি।

বগুড়ার গাবতলীর গোলাবাড়ীর ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলাকে ঘিরে মিলন মেলায় পরিণত হয় গোটা এলাকা। ঘরে ঘরেই যেন উৎসবে মেতেছে মানুষ। মেয়ের জামাইয়ের সাথে আত্মীয়-স্বজনে ভরা সব বাড়ি। বুধবার বিশাল আকৃতির মাছ, আর বড় বড় মিষ্টি কেনা-বেচার মধ্য দিয়ে শেষ হলো ঐতিহ্যবাহী এ মেলা।

গাবতলী সংবাদদাতা আল আমিন মন্ডল জানান, দুই শতাধিক বছরের ঐতিহ্যকে ধারণ করে পোড়াদহ মেলা (মাছের মেলা)। বগুড়ার গাবতলী উপজেলার গোলাবাড়ী থেকে আধা কিলোমিটার দূরে প্রতি বছর ফাঁকা মাঠে বসে এ মেলা। পোড়াদহ মেলা মানেই বিভিন্ন প্রজাতির বিশাল আকৃতির মাছের মেলা ও মাছের আকৃতির মিষ্টি। প্রতি বছর এ মেলাকে কেন্দ্র করে জমে ওঠে মাছের বাজার। এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি। এ ছাড়া ৪৫ কেজি ওজনের বাঘাইর মাছ নিয়ে আনেন মোস্তাফিজার। তার বাড়ি গাবতলী উপজেলার রানিরপাড়া। এক হাজার পাঁচ শ’ টাকা কেজি দরে মাছটির দাম হাকিয়েছেন ৬৪ হাজার টাকা। এটিও যমুনা নদীর মাছ।

প্রতি বছর বাংলা সনের পৌষের শেষ বুধবার এই পোড়াদহ মাছের মেলা বসে। গাবতলী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহমেলায় এসে দেখা মিলে বড় এসব মাছ। পোড়াদহ মেলা প্রাঙ্গণেও রয়েছে শতাধিক খুচরা মাছ বিক্রেতা। সারিবদ্ধভাবে এসব ব্যবসায়ীরা মাছের পসরা সাজিয়ে বসেন। দোকানে মাঝারি, ছোট বিভিন্ন জাতের মাছের পসরা সাজিয়ে বসেন তারা।

বগুড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে লক্ষাধিক মানুষের আগমণ এ মেলায়। মেলার আশপাশে অবস্থিত গ্রামগুলোতে প্রতিটি বাড়িতে আত্মীয়-স্বজনরা আসেন এই মেলা দেখতে। মেলাকে কেন্দ্র করে গ্রামগুলো হয়ে ওঠে উৎসব স্থল। প্রতিটি দোকানে ছিল মাছের সমারোহ।
মাছ ব্যবসায়ী শুকুর আলী জানান, ৬০ কেজি ওজনের বাঘাইর মাছটির দাম কেজি প্রতি এক হাজার পাঁচ শ’ টাকা হাকিয়েছেন। এ ছাড়া ২০ কেজি ওজনের বাঘাইর মাছ কেটে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১২ শ’ টাকায়।

মেলার নিরাপত্তা বিষয়ে বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম (বার) জানান, মেলার সকল প্রকার নিরাপত্তায় কাজ করছে পুলিশ সদস্যরা।

মাছ বিক্রেতারা জানান, প্রতি কেজি গাঙচিতল ৬০০ থেকে এক হাজার টাকা, চিতল ৬০০ থেকে এক হাজার ৬ শ’ টাকা, বোয়াল ৭৫০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা, রুই ৩৫০ থেকে ৬০০ টাকা, কাতলা ৩৫০ থেকে ৭০০ টাকা, মৃগেল ৩৫০ থেকে ৮০০ টাকা, হাঙড়ি ২৫০ থেকে ৪০০ টাকা, গ্রাসকার্প ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, সিলভার কার্প ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা, ব্রিগহেড ৪০০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা, কালবাউশ ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, পাঙ্গাস ৩৫০ থেকে ৭০০ টাকা।

এ মেলায় ১০ কেজি ওজনের মাছের আকৃতির বিশাল মিষ্টি পাওয়া যায়। যার দাম বিক্রেতা স্বপন হাকেন প্রতি কেজি ৩৫০ টাকা করে। আকারভেদে এই মেলায় প্রতিটি মাছ মিষ্টি দেড় কেজি থেকে শুরু করে ১০ কেজি পর্যন্ত পাওয়া যায়। এ ছাড়াও মেলায় রয়েছে সার্কাস, হোন্ডা খেলা, নাগরদোলা, চড়কী, নৌকা, ফুসকার দোকানসহ বিভিন্ন ধরণের বিনোদনমূলক ব্যবস্থা।

মেলায় বেড়াতে আসা গোবিন্দগঞ্জ এলাকার সুমাইয়া, পিয়াসা, ববি, রবিন, শেখর, বাবুল জানান, তারা প্রতি বছর আত্মীয়র বাড়িতে মেলা উপলক্ষে বেড়াতে আসেন। বছরের অন্য সময় বেড়াতে না এলেও এ সময় তারা বড় বড় মাছ দেখতে আসেন।

মেলার আয়োজক কমিটির সদস্য স্থানীয় ইউপি সদস্য সুলতান মাহমুদ জানান, ২০ একর জায়গার ওপর তিন শতাধিক মাছের দোকান, দেড় শতাধিক মিষ্টির দোকানসহ ছোট বড় মিলে এক হাজার দোকান এখানে বসে। মেলা উপলক্ষে বগুড়া শহরের চাষীবাজার, গাবতলীর অদ্দিরগোলা ও পাঁচ মাইলসহ বিভিন্ন জায়গায় মাছের দোকান বসেছে।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com