বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন

আদালতে রেস্টুরেন্টের সেই দিনের ঘটনার চা’ঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন ছাত্রীর বান্ধবী

আদালতে রেস্টুরেন্টের সেই দিনের ঘটনার চা’ঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন ছাত্রীর বান্ধবী

রাজধানীর ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) শি’ক্ষার্থীকে ধ… ও হ.. অ’ভিযো’গে করা মা’ম’লায় গ্রে ফ’তার ফারজানা জামান নেহা সেদিনের ঘটনা স’ম্পর্কে আদালতকে বলেছেন, ওই দিন রেস্টুরেন্টে তিনি ম ০দপা’ন করার পর মুখ দিয়ে র ০ক্ত বের হয়। তখন সেখান থেকে তিনি বাসায় চলে যান। পরে হা’সপাতালে চি’কিৎসা নেন। শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) ওই ছা’ত্রীর বা’ন্ধবী নেহাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হলে তিনি এ কথা বলেন।

আদালতে নেহা বলেন, ‘গত ২৮ জানুয়ারি আমার বন্ধু আরাফাতের নিমন্ত্রণে উত্তরার ব্যাম্বুসুট রেস্টুরেন্টে যাই। সেখানে গিয়ে আরও কয়েকজনকে দেখতে পাই। আমি আরাফাত ছাড়া অন্য কাউকে চিনতে পারিনি। সেখানে আমি ম’ ০দপা’ন করি। তিন প্যাক খাওয়ার পর আমার মু’খ দিয়ে র’ ক্ত বের হয়। আমি তখন সেখান থেকে বাসায় চলে যাই। বাসায় আসার পরও আমার কয়েক দফা ব’মি হয়। আমি হা’সপাতা’লে চি’কিৎসা নিই।’

এদিন মা’ম’লার সুষ্ঠু ত’দন্তের জন্য নেহাকে সাতদিনের রি’মান্ডে নিতে আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার তার পাঁচদিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাজধানীর আজিমপুর এলাকার একটি বাসা থেকে নেহাকে গ্রে০’ফতার করা হয়। প্রা’ণ হা’রানো ছা’ত্রীর বা’বার করা মা’ম’লায় তিনি এ’জাহারভুক্ত আ’সা’মি।

তারও আগে বৃহস্পতিবার ঢাকা ম’হানগর হাকিম নিভানা খায়ের জেসির আদালতে আ’ত্মসমর্পণ করে জা’মিন আবেদন করেন আরাফাতের ব’ন্ধু শাফায়াত জামিল (২২)। আদালতে হলফনামা দিয়ে মামলায় স’ম্পৃক্ততার ইচ্ছা প্রকাশ করেন শাফায়াত। এরপর বি’চারক মা’ম’লায় তাকে গ্রে’০ ফতার দেখিয়ে ‘জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কা’রাগা’রে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

হলফনামায় শাফায়াত দা’বি করেন, ‘গত ২৮ জানুয়ারি বন্ধু আরাফাতের নিমন্ত্রণে উত্তরার ব্যাম্বুসুট রেস্টুরেন্টে গিয়েছিলেন তিনি। রেস্টুরেন্টে আরাফাত ও তার আরেক বন্ধু মুর্তজা রায়হান চৌধুরী তার বা’ন্ধবীকে নিয়ে আসেন।’

মুর্তজা ও তার বা’ন্ধবী পূর্বপরিচিত ছিলেন না উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘তারা হালকা নাস্তার পর ম ০দপা’ন করে চলে যান। আমি অ’সু’স্থ বো’ধ করলে রেস্টুরেন্ট থেকে বাসায় চলে যাই। ৩০ জানুয়ারি আরাফাত মা’ ০রা যান।’

গণমাধ্যমে মুর্তজা রায়হানের বা’ন্ধবীর মৃ’ ত্যুর কথা জেনেছেন দা’বি করে শাফায়াত বলেন, ‘এরপর পুলিশ ও গো’য়েন্দা সংস্থার লো’কজন আমার বাসায় অ’ভিযান চালায়। আমি খোঁ’জ নিয়ে জানতে পারি, আরাফাতসহ চারজন ও অ’জ্ঞাতনামা এ’কজনের বি’রু’দ্ধে মা’ম’লা হয়েছে। যেহেতু পুলিশ ও বিভিন্ন গো’য়েন্দা সং’স্থা আমা’র বাসায় অ’ভিযান চালায়, সেহেতু অ’জ্ঞা’তনামা আ’সা’মি হিসেবে আমি নিজেকে স’ন্দেহ করছি। আমি এ মা’ম’লায় সম্পৃক্ত হতে ইচ্ছুক।’

ওই ছা’ত্রীর বা’বার মা’ম’লার এ’জাহার থেকে জানা যায়, গত ২৮ জানুয়ারি বিকেল ৪টায় মুর্তজা রায়হান ওই ত’রুণীকে নিয়ে মিরপুর থেকে আরাফাতের বাসায় যান। সেখানে স্কুটার রেখে আরাফাত, ওই ত’রুণী এবং রায়হান একসঙ্গে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের ব্যাম্বুসুট রেস্টুরেন্টে যান। সেখানে আগে থেকেই আরেক আসামি নেহা এবং একজন সহপাঠী উপস্থিত ছিলেন। সেখানে আ’সা’মিরা ওই ত’রু’ণীকে জো’র করে ‘অধিক মা’ত্রায়’ ম’ ০দপা’ন করান।

ম’ দপা’নের একপর্যায়ে ওই ত’রু’ণী অ’সু’স্থ বোধ করলে রায়হান তাকে মোহাম্মদপুরে তার এক বা’ন্ধবীর বাসায় পৌঁছে দেয়ার কথা বলে বন্ধু নুহাত আলম তাফসীরের বাসায় নিয়ে যান। সেখানে ত’রু’ণীকে ধ… করেন রায়হান। এ সময় রায়হানের ব’ন্ধুরাও কক্ষে ছিলেন।

ধ…. পর রাতে ওই ত’রু’ণী অ’সু’স্থ হয়ে ব’মি করলে রায়হান তার আরেক বন্ধু অসিম খানকে ফোন দেন। সেই বন্ধু পরদিন এসে ত’রু’ণীকে প্রথমে ইবনে সিনা ও পরে আনোয়ার খান মডার্ন মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লে ভর্তি করেন। দুদিন লা’ইফ সা’পোর্টে থাকার পর তার মৃ” ত্যু হয়।

ওইদিনই চারজনকে আ’সা’মি করে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় মা’ম’লা করেন নি”ত ত’রুণীর বা’বা। মা’ম’লায় অ’জ্ঞা’তনামা আরও একজনকে আ’সা’মি করা হয়।৩১ জানুয়ারি মুর্তজা রায়হান চৌধুরী ও নুহাত আলম তাফসীরের পাঁচদিন করে রি’মা’ন্ড মঞ্জুর করেন আ’দালত।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com