অন্তরঙ্গ দৃশ্য ভাইরালের পর পালিয়ে বেড়াচ্ছেন সেই রাসেল!

| আপডেট :  ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫৬ অপরাহ্ণ | প্রকাশিত :  ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫০ অপরাহ্ণ

নিজের সিনেমাকে ’পাপমুক্ত’ দাবি করে আলোচনায় আসেন অভিনেতা রাসেল মিয়া। ২রা সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় তার ‘ভাইয়ারে’ সিনেমাটি। মুক্তির প্রথম দিন সিনেমাটি ‘পাপমুক্ত’ বলে দাবি করেন এর অভিনেতা রাসেল। এছাড়াও একজন বাউল শিল্পীর নামে মামলা এবং সাজাপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীর মুক্তির দাবি করে তার বক্তব্য নতুন বিতর্কের সৃষ্টি করে। এবার সেই রাসেল মিয়া পালিয়ে বেড়াচ্ছেন!

রাসেল মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, না’রীর প্রতি স’হিংসতা উসকে দেয় এমন দৃশ্যে অভিনয় করার। সার্বিক বিষয়ে রাসেল মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। বরং তিনি ঘটনা থেকে পালিয়ে থাকার চেষ্টা করছেন এবং বিতর্ক এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।

রাসেল মিয়ার কাছে সিনেমাকে ‘পাপমুক্ত’ বলার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, সিনেমাটি করতে গিয়ে কারও হাত পর্যন্ত ধরেননি। তিনি বোঝাতে চেয়েছেন যে ‘ভাইয়ারে’ ছবিটি করতে গিয়ে তারা ব্যক্তিগত কোনো পাপ করেননি! ব্যক্তিগত পাপ ছাড়াও যে চলচ্চিত্র অঙ্গনে শত শত সিনেমা নির্মাণ হয়েছে, এর উদাহরণ ইন্ডাস্ট্রিতে আছে। তবে ব্যক্তিগত পাপের সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি তিনি।

অন্যদিকে সাজাপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীর মুক্তির দাবির বিষয়ে ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। সেখানে আমাকে প্রশ্ন করা হয় দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী সম্পর্কে। তখন আমি বলেছি, কিন্তু আমি নিজে থেকে কিছু বলিনি।’

এদিকে ‘পাপমুক্ত’ সিনেমা দাবি করার কয়েক দিন পরই রাসেল মিয়ার শুটিংয়ের একটি অন্তরঙ্গদৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমও সংবাদ প্রকাশ করে। এ বিষয়ে রাসেল মিয়া বলেন, ইচ্ছাকৃতভাবে তাকে সামাজিকভাবে হেয় করার জন্য এটি ছড়ানো হয়েছে।

অন্যদিকে সিনেমাকে ‘পাপমুক্ত’ দাবি করায় চলচ্চিত্রাঙ্গনের অনেককে ছোট করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন দেশের কয়েকজন নির্মাতা ও প্রযোজক। তারা বলছেন, ‘এরকম বিকারগ্রস্ত মানুষের জন্য আমাদের শিল্পের আজ এই অবনতি। সিনেমা তো সিনেমাই, সেখানে পাপ বলে কি বোঝাতে চেয়েছেন উনি তা উনিই ভালো জানেন। তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সময় এসেছে।’

বিষয়টি নিয়ে পারিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান উত্তেজিত হয়ে বলেন, ‘এরকম মানসিকতার মানুষকে এফডিসিতেই ঢুকতে দেয়া উচিত নয়। এমন কাজ দ্বিতীয়বার কেউ যেন না ঘটাতে পারে, সেজন্য তার বিরুদ্ধে আমরা অ্যাকশনে গিয়েছি। ঘটনাটি শোনার পর থেকে তাকে খোঁজা হচ্ছে, কিন্তু বিতর্ক সৃষ্টি করে তিনি পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।’

পরিচালক সমিতি থেকে কোনো নোটিশ দেয়া হয়েছে কি না–জানতে চাইলে সোহান বলেন, ‘তার কোনো ঠিকানা আমরা জানি না। চিঠি দেব কাকে? তবে সে যদি এফডিসিতে আসে আর আমরা যদি তাকে পাই, তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেব।’

সিনেমা ‘পাপমুক্ত’ বলতে কী বোঝায় তা জানতে প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সিনেমা একটি শিল্প। এই শিল্প আমাদের সংস্কৃতির কথা বলে, এই শিল্প মানুষের কথা বলে। তাই সিনেমা সিনেমাই, ‘পাপমুক্ত’র সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই।’

‘ভাইয়ারে’ সিনেমাটির নাম চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাসেল মিয়া। এছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে আরো অভিনয় করেছেন শবনম পারভীন, পীরজাদা হারুন, বড়দা মিঠু, সীমান্ত আহমেদ। ‘ভাইয়ারে’ সিনেমার সংগীত পরিচালনা করেছেন প্লাবন কোরেশি। গান গেয়েছেন এস আই টুটুল, মনির খান ও সুলতানা ইয়াসমিন লায়লা। সিনেমাটি ২৪ জানুয়ারি বিনা কর্তনে সেন্সর ছাড়পত্র পায়। এটি প্রযোজনা করেছেন ফখরুল হোসেন। পরিবেশনায় রয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। সূত্রঃ সময় নিউজ টিভি