বউয়ের সঙ্গেও সবসময় মিথ্যা বলেন অনন্ত জলিল!

| আপডেট :  ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৩৮ অপরাহ্ণ | প্রকাশিত :  ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

ঢালিউডের সবচেয়ে বেশি আলোচিত মুখ অনন্ত জলিল। ২০১০ সালে খোঁজ-দ্যা সার্চ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন তিনি। গার্মেন্টস ব্যবসার পাশাপাশি নিজের প্রযোজনা সংস্থার মাধ্যমে চলচ্চিত্র ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন। দেশীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে টেকনিক্যাল দিক থেকে শুরু করে অনেক কিছু দেখিয়েছেন। বিদেশের সিনেমার মতো অ্যাকশন তার সিনেমার মাধ্যমেই দর্শক প্রথমবার দেখার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি অনন্ত জলিল।

দীর্ঘ আট বছর পর গত ঈদুল আজহায় মুক্তি পায় অনন্ত জলিলের নতুন সিনেমা ‘দিন দ্য ডে’। বরাবরের মতো এবারও তার সঙ্গী ছিলেন চিত্রনায়িকা বর্ষা। সিনেমা মুক্তির পরপরই বেশ আলোচনায় চলে আসে বাংলা সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি। এ সিনেমা নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। কিন্তু তারপরও থেমে থাকেননি অনন্ত জলিল।

এবার নতুন সিনেমা ‘কিল হিম’ নিয়ে আসছেন তিনি। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সিনেমাটির মহরত অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সিনেমা, ও ব্যক্তিগত জীবনসহ আরও নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন।

ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তিনি বলেন, আমি প্রায় সময়ই মিথ্যে কথা বলি আমার বউয়ের (বর্ষা) সঙ্গে। এখন যদি বলতেই হয় তাহলে বলতে হচ্ছে, বউ আমাকে জিজ্ঞেস করে, এই তুমি কখন বের হবা? তখন বলি, এই তো ১ ঘণ্টার মধ্যে বের হচ্ছি। ১ ঘণ্টা শেষ হলে আবারও যখন বউ জিজ্ঞেস একইভাবে, তখন আমি বলি এই তো আর ১০ মিনিটের মধ্যে বের হব। এই ধরনের মিথ্যা কথা বলি আমার বউয়ের সঙ্গে।

সাংবাদিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি এবারের কান চলচ্চিত্র উৎসবে যাওয়ার ঘটনা স্মৃতিচারণ করেন। তিনি বলেন, আমি আসলে কৃতজ্ঞ আমার সাংবাদিকের প্রতি। একই সঙ্গে অনেক ভালোবাসা জানাই। এবারের কান চলচ্চিত্র উৎসবে কিন্তু আমি সেটা প্রমাণও করে দিয়েছি। কান চলচ্চিত্র উৎসব কিন্তু বাংলাদেশিদের জন্য অনেক বড় আকারে ছিল আয়োজন। কারণ, বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক সিনেমা, আমার দুটি সিনেমার ট্রেলার ও দেশ থেকে কিন্তু প্রায় ১৮ জন সাংবাদিক গিয়েছিলেন। ওখানে গিয়ে আমি সব সাংবাদিকদের লাঞ্চে দাওয়াত দিয়েছি। আমরা যে হোটেলটিতে ছিলাম। (নাম ভুলে যাওয়ায় তিনি বর্ষার উদ্দেশ্যে তখন বলেন, এই বউ হোটেলটার নাম যেন কি, আমি তো ভুলে গেছি)।

বর্ষা তখন হোটেলটির নাম মনে করিয়ে দেন। অনন্ত জলিল বর্ষাকে (এই বউ) বলে সম্বোধন করায় সংবাদ সম্মেলনে থাকা সবাই তখন হেসে ফেলেন। যদিও অনন্ত জলিল ও বর্ষা নিজেও হাসেন। আর এই কথাটিই পরবর্তীতে ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে। যদিও বিষয়টি সবাই পজেটিভ চোখেই দেখেছেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে ‘দিন দ্য ডে’। সিনেমাটির বাজেট ১০০ কোটি টাকা বললেও পরবর্তীতে তা নিয়ে জল ঘোলা হয়। প্রযোজক বলেছিলেন ৪ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। কিন্তু জলিল বলেন এটা মূলত একটি ভুল তথ্য। পুরো সিনেমার বাজেট ১০০ কোটি টাকাই। কিন্তু আমি আগেও বলেছি ৪ কোটি টাকা নিয়ে যে জল ঘোলা হয়েছে তা না বুঝেই করা হচ্ছে। কারণ, বাজেট আমার দেশের ৪ কোটি টাকা। বাকি টাকা দেশের বাইরে করা শুটিংয়ের।

পাঁচ বছর বয়সে মাকে হারান অনন্ত জলিল। মুন্সীগঞ্জ জেলায় বাবার কাছে বেড়ে উঠেছেন। তার প্রকৃত নাম আব্দুল জলিল। তিনি ও লেভেল এবং এ লেভেল পড়েছেন ঢাকার অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল থেকে। এরপর ম্যানচেস্টার থেকে বিবিএ এবং ফ্যাশন ডিজাইনিং পড়ালেখা করেন।

পোশাক ব্যবসায়ে পা রাখে ১৯৯৯ সালে। ২০০ শ্রমিক থেকে বর্তমানে তার পোশাক কারখানায় কাজ করে সাড়ে ১২ হাজার শ্রমিক। তিনি ২০১০ সালে খোঁজ-দ্যা সার্চ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডের চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন। গার্মেন্টস ব্যবসার পাশাপাশি নিজের প্রযোজনা সংস্থার মাধ্যমে চলচ্চিত্র ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন।