টিকিট না পেয়ে ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’র পুরো শো কিনে নিলেন দুই বন্ধু

| আপডেট :  ১৪ আগস্ট ২০২২, ০৩:১৫ অপরাহ্ণ | প্রকাশিত :  ১৪ আগস্ট ২০২২, ০৩:১৩ অপরাহ্ণ

১৭ বছর ধরে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস করছেন সাব্বির চৌধুরী। অস্ট্রেলিয়ায় থেকেই নিয়মিত বাংলাদেশের নাটক, টেলিফিল্ম ও বিজ্ঞাপনে প্রযোজনা করছেন। নাট্য প্রযোজক হিসেবে তিনি বাংলাদেশেও পরিচিত মুখ। বহু প্রশংসিত নাটকের প্রযোজক তিনি। বাংলা সিনেমাকে ভালোবেসে বিভিন্ন সময়ে বাংলা সিনেমা অস্ট্রেলিয়ায় ডিস্ট্রিবিউট করেছিলেন। অস্ট্রেলিয়ায় মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে সাব্বির পড়েছিলেন মধুর সমস্যায়। সিনেমার টিকিট পাচ্ছিলেন না।

দেশের পর বিদেশেও এক একই অবস্থা। অস্ট্রেলিয়ায় মুক্তি পেয়েছে সিনেমা দুটি। এরই মধ্যে দুটি সিনেমার অগ্রিম টিকিট নিয়ে সেখানকার বাঙালি দর্শকের এখন হাহাকার! অনেকেই আফসোস করে বলছিলেন, ‘টিকিট পাচ্ছি না। তাহলে কি প্রথম সপ্তাহে সিনেমা দুটি দেখতে পারব না!’

সাব্বির চৌধুরীর দীর্ঘদিনের বন্ধু সালমিন সুলতানা তানহা। তিনিও তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের জন্য টিকিট পাচ্ছিলেন না। তাই দুই বন্ধু ‘হাওয়া’ এবং ‘পরাণ’-এর অস্ট্রেলিয়ান ডিস্ট্রিবিউটরদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁদের থেকে কিনে নিয়েছেন দুই সিনেমার দুই শো।

আজ রোববার সিডনির হয়েটস ব্যাংকসটাউন সিনেমাসে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার শোতে দেখবেন ‘হাওয়া’ এবং আগামী শনিবার একই সময়ে দেখবেন ‘পরাণ’।

সাব্বির বলেন, ‘অতীতে আমি অস্ট্রেলিয়ায় বাংলা সিনেমা ডিস্ট্রিবিউশন করেছি। তা ছাড়া এখানে বহু বছর থাকার কারণে অনেক বড় একটা অডিয়েন্স আমাকে চেনেন। তাঁরা আমাকে পারসোনালি ও ফেসবুকে বিভিন্ন বাংলাদেশি অস্ট্রেলিয়ান গ্রুপে টিকিট না পাওয়ার কথা জানাচ্ছিলেন। আমি যেহেতু সব সময়ই কাজ করি অডিয়েন্সের জন্য, সেখান থেকেই আমি ইনিশিয়েটিভটা নিই।’

সালমিন জানালেন তিনি এমন মধুর সমস্যায় পড়েছেন। বললেন, ‘দুজনে মিলে সিদ্ধান্ত নিলাম স্পেশাল কোনো শো করা যায় কি না। অস্ট্রেলিয়ায় সিনেমা দুটির পরিবেশকের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আশানুরূপ সাড়া পাই। তারা সম্মত হন, আমাদের জন্য দুই শোয়ের ব্যবস্থা করে দেবেন।

উল্লেখ্য , দেশে সফল ব্যবসার পর অস্ট্রেলিয়ায় ‘হাওয়া’র প্রথম দুই সপ্তাহের সিডনি ও মেলবোর্ন শহরের সবগুলো শোর টিকেট বিক্রি শেষ! পরিবেশকেরা জানান, টিকিট ছাড়ার চার দিনের মধ্যেই এই বৃহৎ দুই শহরের সবগুলো শোর টিকিট অগ্রিম বিক্রি হয়ে গেছে।