‘টিকিটের হাহাকার দেখে অনেকেরই ঘুম হারাম’

| আপডেট :  ২১ জুলাই ২০২২, ০৫:০৭ অপরাহ্ণ | প্রকাশিত :  ২১ জুলাই ২০২২, ০৫:০৭ অপরাহ্ণ

দেশীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে টেকনিক্যাল দিক থেকে শুরু করে অনেক কিছু দেখিয়েছেন। বিদেশি সিনেমার মতো অ্যাকশন তার সিনেমার মাধ্যমেই দর্শক প্রথমবার দেখার সুযোগ পেয়েছেন। বলছি অনন্ত জলিলের কথা।

দীর্ঘ আট বছর পর নতুন সিনেমা নিয়ে হাজির হয়েছেন এ নায়ক। ঈদ উপলক্ষে গত ১০ জুলাই দেশের ১১৫টি হলে মুক্তি পেয়েছে অনন্ত জলিলের ‘দিন-দ্য ডে’ সিনেমাটি। বরাবরের মতো এবারও তার সঙ্গী হয়েছেন বর্ষা। বর্তমানে সিনেমাটির প্রচার-প্রচারণা নিয়ে দেশের নানান প্রান্তে যাচ্ছেন অনন্ত-বর্ষা। এর পাশপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও নিয়মিত প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

সেই ধারাবাহিকতায় গত ১৮ জুলাই সন্ধ্যায় যমুনা ব্লকবাস্টারে সিনেমা দেখতে গিয়েছিলেন অনন্ত-বর্ষা দম্পতি। সেদিন তিনি তারকাদের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদেরও সিনেমাটি দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

‘দিন দ্য ডে’ সিনেমাটি দেখে যমুনা ব্লকবাস্টার থেকে বের হয়ে একঝাঁক তরুণ-তরুণী উচ্ছ্বাসের সঙ্গে জানান, ‘‘এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে সবচেয়ে ভালো মুভি ‘দিন দ্য ডে’। বোঝা যাচ্ছে, কেন এটার বাজেট ১০০ কোটি। হলিউড মুভি ফেল। আমাদের বাংলাদেশকে গর্বিত করেছে অনন্ত জলিল। ১০০ বছরে এমন মুভি কেউ বানায়নি। টম ক্রুজ ফেল, শাহরুখ খান ফেল। অনন্ত জলিল বেস্ট। বড় হয়ে অনন্ত জলিলের মতো হতে চাই।’’

বহুদিন পর বাংলা চলচ্চিত্রে সুবাতাস বইছে উল্লেখ করে সিনেমা দেখতে আসা শিক্ষার্থীদের একজন জানান, ‘‘বাংলা সিনেমা নিয়ে এত আলোচনা হতে এর আগে দেখিনি। তবে কারও কারও সেটি সহ্য হচ্ছে না। তারা সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার চালাচ্ছেন। ‘দিন দ্য ডে’র টিকিটের হাহাকার দেখে তাদের অনেকেরই ঘুম হারাম।’’

এদিকে সিনেমা দেখে বের হয়ে দর্শকদের একজন জানান, ‘অনন্ত জলিলের জন্যই সিনেমাটি দেখতে এসেছিলাম। ব্যক্তিগতভাবে আমি তাকে খুব পছন্দ করি। সাধারণত এ ধরনের সিনেমা আমি দেখি না, আর্ট ফিল্ম দেখি। অনন্ত জলিল ফ্যান্টাস্টিক।’

তিনি আরও জানান, ‘এ রকম হিরো বাংলাদেশে আর একটিও নেই। অনন্ত জলিলকে কাজে লাগানো দরকার। যারা ভালো নির্মাতা, ভালো গল্প লেখেন- তারা অনন্ত জলিলকে কাজে লাগাতে পারেন।’

অনন্ত জলিল জানিয়েছিলেন, ‘দলে দলে স্টুডেন্টরা এসে কাউন্টারে টিকিট চাচ্ছে। আমি আসলে অনেক কৃতজ্ঞ। ধন্যবাদ সবাইকে। আপনারা জানেন, যেখানেই যাচ্ছি সেখানেই একই অবস্থা।’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে ‘দিন দ্য ডে’। সিনেমাটির বাজেট ১০০ কোটি টাকা। এই সিনেমার বাংলাদেশের অংশের প্রযোজক অনন্ত জলিল। অর্থাৎ বাংলাদেশে শুটিংয়ে যে অর্থ ব্যয় হয়েছে, তিনি সেই অংশটুকুতেই লগ্নি করেছেন। অন্যান্য দেশের শুটিংয়ে ব্যয় বহন করেছে ইরানি প্রযোজক। বাজেটের কারণে বেশ আগে থেকেই আলোচনায় রয়েছে ‘দিন-দ্য ডে’। মুক্তির পরেও কম আলোচনা-সমালোচনা হয়নি।