মঙ্গলবার, ২৮ Jun ২০২২, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

বাবা গরিব বলে ভেঙে গেল বিয়ে, বি’ষপানে না ফেরার দেশে প্রেমিকা

বাবা গরিব বলে ভেঙে গেল বিয়ে, বি’ষপানে না ফেরার দেশে প্রেমিকা

মেয়ের বাবা গরিব বলে প্রেমিকের পরিবার বিয়ে ভে’ঙে দেয়ায় বি’ষপান করে আত্মহ’’ত্যা করেছেন তামান্না আক্তার নামের এক কলেজছাত্রী। আত্মহ’’ত্যার আগে প্রেমিকের বি’রুদ্ধে দেড় বছর ধরে ধ”ণের অ’ভিযোগ এনেছেন তিনি। শনিবার সকালে পাঁচ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মা’রা যান তামান্না আক্তার। তিনি আমতলী স’রকারি কলেজেরে একাদ্বশ শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

তামান্নার পরিবারের অ’ভিযোগ, ‘উপজে’লার তারিকা’টা গ্রামের মোকলেসুর রহমানের ছেলে আমতলী পৌর শহরের হাসপাতাল সড়কের ফল ব্যবসায়ী সুজন হাওলাদার তামান্নাকে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমের ফাঁ’দে ফে’লে দেড় বছর ধরে ধ”ণ করে আসছিল। তামান্না প্রেমিক সুজনকে বিয়ের জন্য চা’প দেয়। সোমবার দু’পরিবার বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক করার সময় বা’ধা হয়ে দাঁড়ান প্রেমিক সুজনের খালা মাহফুজা বেগম।

মেয়ের বাবা বাচ্চু মোল্লার অ’ভিযোগ, ‘ছেলের বাবা মোকলেসুর রহমান ও খালা মাহফুজা বেগম মেয়ের বাড়ি-ঘর দেখতে আসার অজুহাত দেখিয়ে সোমবার বিয়ে ভেঙ্গে দেয়। অ’পমান সইতে না পেয়ে তামান্না ওই দিন রাতে বি’ষপান করে আত্মহ’’ত্যার চেষ্টা চা’লায়। তাৎক্ষনিক তাকে স্বজনরা উ’দ্ধার করে আমতলী উপজে’লা স্বা’স্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: কাঙ্খিতা মণ্ডল তৃষ্ণা তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতলে পাঠান। সেখানে পাঁচ দিন চিকিৎসার পর শনিবার সকালে মা’রা গেছে তামান্না।’ ঘটনার পর প্রেমিক সুজন ও তার পরিবার গা-ঢাকা দিয়েছেন। এ ঘটনার মা’মলার প্রস্তুতি চলছে। অ’ভিযুক্ত প্রেমিক সুজনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

সুজনের খালা মাহফুজা বেগম বলেন, ‘সুজনের মা নেই, ওকে আমি লালন-পালন করে বড় করেছি। মেয়ের পরিবার পছন্দ হয়নি তাই বিয়ে হয়নি।’

হলদিয়া ইউপি সদস্য মো: সাইদুল ইসলাম স্বপন বলেন, মেয়ের পরিবার গরিব বলে বিয়ে ভে’ঙে দেয় ছেলের পরিবার। এ অ’পমান সইতে না পেরে মেয়ে বি’ষপানে আত্মহ’’ত্যা করেছে।আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে এম মিজানুর রহমান বলেন, ঘটনা শুনেছি। অ’ভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2022 banglaekattor.com