সিঁথিতে সিঁদুর পরিয়ে মুসলিম তরুণীকে নিয়ে আবাসিক হোটেলে যুবক

| আপডেট :  ১৩ জুন ২০২২, ০৪:৪৪ অপরাহ্ণ | প্রকাশিত :  ১৩ জুন ২০২২, ০৪:৪৩ অপরাহ্ণ

ফরিদপুরের মধুখালী থেকে নি’খোঁজের চারদিন পর এক যুবককে প্রেমিকাসহ কক্সবাজারের একটি আবাসিক হোটেল থেকে আ’টক করেছে পুলিশ। বিশ্ব সাহা (২২) নামে সনাতন ধর্মাবলম্বী ওই যুবক তার ইসলাম ধর্মাবলম্বী প্রেমিকা লাবনী খাতুনের (১৯) সিঁথিতে সিঁদুর পরিয়ে বিয়ে করেন। পরিবারের মুচলেকা নিয়ে পুলিশ তাদের নিজ নিজ পরিবারের জিম্মায় হস্তান্তর করেন।

বিশ্ব সাহার এক আত্মীয় জানায়, ধনাঢ্য বাবার ইচ্ছাতেই বিশ্বকে লাবনীর নিকট হতে আলাদা করে নেয়া হয়েছে। স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধির পুলিশের মধ্যস্থতায় পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে মেয়ের পরিবারকে। তবে মেয়েটির পরিবার টাকা গ্রহণের বি’ষয়টি অস্বীকার করেন।

পুলিশ জানায়, মধুখালী পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের বৈকুন্ঠপুরের বাসিন্দা সিমেন্ট ব্যবসায়ী ও ইটভাটা মালিক সুজিত সাহা গত ৭ জুন তার ছেলে বিশ্ব সাহা (২৫) নি’খোঁজ হয়েছেন বলে মধুখালী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জি’ডি) করেন। জি’ডিতে উল্লেখ্য করা হয়, সকালে তার ছেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। জি’ডির পর ঘটনা ত’দন্ত শুরু করে পুলিশ।

ত’দন্ত পুলিশ জানতে পারে বিশ্ব সাহা নওপাড়া ডিগ্রী কলেজের বিএ প্রথম বর্ষের ছাত্র। তার সাথে একই কলেজের সহপাঠী লাবনী খাতুন নামে এক মেয়ের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক। পুলিশের ত’দন্তকারী দল তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা তাদের অবস্থান শনাক্ত করে। এরপর শুক্রবার রাতে তাদের দুজনকে কক্সবাজারের হোটেল সিফাত নামে একটি আবাসিক হোটেলের একটি কক্ষ থেকে আ’টক করে। এ সময় লাবনীকে সিঁথিতে সিঁদুর দেয়া অবস্থায় পাওয়া যায়। তারা স্বেচ্ছায় বাড়ি থেকে পা’লিয়ে বিয়ে করেছে বলেও পুলিশকে জানায়।

লাবনীর বড় বোন রাবেয়া খাতুন বলেন, একটু ঝামেলা হয়েছিল। সেটিা আমরা নিজেরাই মিটমাট করে ফে’লেছি। কাজেই আর ঝামেলায় জড়াতে চাচ্ছি না।বি’ষয়টি জানতে সুজিত সাহার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কক্সবাজার থেকে বিশ্ব ও লাবনীর আ’টকের বি’ষয় অস্বীকার করে বলেন, তার ছেলে বিশ্ব সাহা রাগ করে বাড়ি থেকে বের হয়ে গিয়েছিল। তাকে খুঁজে না পেয়ে থানায় জি’ডি করেন। এরপর মাওয়া ঘাট থেকে মধুখালী থানা পুলিশ তাকে উ’দ্ধার করে।

মধুখালী থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) শহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছেলের বাবার জি’ডির সূত্র ধরে তাদের সন্ধান চা’লিয়ে দুজনকেই কক্সবাজারের একটি হোটেল থেকে উ’দ্ধার করা হয়। এরপর কক্সবাজার থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাদের মধুখালীতে ফিরিয়ে এনে মুচলেকা দিয়ে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়।এদিকে, প্রেমিক যুগলের চারদিন নি’খোঁজ থাকার ও ধর্মান্তরিত হয়ে বিয়ের পর মোটা অঙ্কের জরিমানায় তাদের ছাড়াছাড়ির খবরটি মধুখালীতে টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়।