বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশে ইলন মাস্কের স্যাটেলাইট ইন্টারনেট, বিস্মিত মন্ত্রী

বাংলাদেশে ইলন মাস্কের স্যাটেলাইট ইন্টারনেট, বিস্মিত মন্ত্রী

প্রযুক্তি: বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের স্যাটেলাইট ইন্টারনেট সেবা স্টারলিংক চালু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশসহ এশিয়ার দেশ কয়টি দেশে। আগামী বছরে স্টারলিনক এর ইন্টারনেট সেবা বাংলাদেশের চালু হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ থেকে তারা প্রি-অর্ডার গ্রহণ করছে। তবে সরকারের কাছ থেকে অনুমোদন না নিয়ে এমন উদ্যোগে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

স্টারলিংকের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে একটি ম্যাপ শেয়ার করে জানানো হয়, এশিয়া, ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকার বেশিরভাগ দেশ তাদের সেবার আওতায় আসতে যাচ্ছে। ওয়েট লিস্টের দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে- ব্রাজিল, সৌদি আরব, পাকিস্তান, ভারত ও বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ থেকে প্রি-অর্ডার সেবা পেতে স্টারলিংকের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে ৯৯ ডলার ফি প্রদানের একটি নির্দেশনা আসে। সেখানে বলা হয়েছে, স্টারলিংক ২০২৩ সালে এই এলাকায় তাদের সেবা প্রসারিত করার আশা করছে।এদিকে, বাংলাদেশ সরকার ও বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া স্টারলিংক তাদের ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার ঘোষণা কীভাবে দেয়, তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

মন্ত্রী বলেন, সরকারের অনুমতি ছাড়া ইলন মাস্ক বাংলাদেশে ইন্টারনেট সেবা চালু করতে পারেন না। স্যাটেলাইট দিয়ে আমার দেশে ইন্টারনেট সেবা দিতে পারবে কি না, এমন আবেদন আগে জমা দিতে হবে। তারপর দেশের সম্মতির ওপর নির্ভর করবে প্রি-বুকিং।

বাংলাদেশ থেকে কেউ যদি স্টারলিংকে প্রি-অর্ডার দিতে চায় সে বিষয়ে করণীয় সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, দেশে কেউ স্যাটেলাইট সেবা চালু করতে চাইলে সরকারের কাছ থেকে তাকে ল্যান্ডিং পারমিশন নিতে হবে। তারপর গ্রাহক পর্যায়ে সেবা দিতে গেলে বিটিআরসির অনুমোদন লাগবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ সরকার এবং বিটিআরসি এখনো পর্যন্ত কাউকে স্যাটেলাইট ইন্টারনেট-সেবা দেওয়ার জন্য অনুমতি দেয়নি। স্টারলিংক তাদের ইন্টারনেট সেবা সারাবিশ্বে দিতে পারে, তবে আমাদের দেশে দিতে পারবে কিনা সেটা ভেবে দেখবে আমাদের সরকার।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2022 banglaekattor.com