৪০ টাকা বেশি রাখতে গিয়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা! - বাংলা একাত্তর ৪০ টাকা বেশি রাখতে গিয়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা! - বাংলা একাত্তর

রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ঢাকা হয়ে আগরতলা থেকে কলকাতা বাস চলবে ১০ জুন থেকে ধৈর্য পরীক্ষায় এত বড় পাশ দিলাম, ছোটমোটো প্রাইজে চলবে না: পরিমণি মেয়েকে উ’ত্ত্যক্ত করায় ব’খাটেকে প্রকাশ্যে লা’ঠি পে’ঠা করলেন মা অনুষ্ঠানে দাওয়াত না পেয়ে শিক্ষকদের পেটালেন চেয়ারম্যান ফেসবুকে প্রথম দেখাতেই প্রেম; ‘মেঘনা’ ভেবে পুরুষকে বিয়ে করল যুবক সিজার ছাড়াই ১২ ঘণ্টায় ৬ নবজাতকের স্বাভাবিক প্রসবে অনন্য রেকর্ড! মায়ের মৃত্যুতে হতাশ হয়ে নদীতে ফেলে দিলেন নিজের দেড় কোটির টাকার গাড়ি চরম সর্বনাশের মুখে কঙ্গনা! বিদ্যুৎ কর্মকর্তার গ’লায় ছু’রি ঠেকিয়ে বিচ্ছিন্ন সংযোগ জোড়া লাগালেন গ্রাহক সরকারি সুবিধা নিতে নিজের স্ত্রীকেই ফের বিয়ে করলেন ছাত্রনেতা!
৪০ টাকা বেশি রাখতে গিয়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা!

৪০ টাকা বেশি রাখতে গিয়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা!

সারাদেশ: ময়মনসিংহের ত্রিশালে সয়াবিন তেলের দাম ৪০ টাকা বেশি রাখতে গিয়ে দোকানদারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে। ত্রিশালে মেসার্স তামিম এন্টারপ্রাইজ নামের ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকের কাছ থেকে জরিমানার টাকা আদায় করা হয়।

এসময় আরও তিন মামলায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে জেলা ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। জরিমানা করা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, উপজেলার রূপকথা রেস্টুরেন্ট ও পার্টি সেন্টারকে ৩০ হাজার টাকা, আজিজুল স্টোরকে ১৫ হাজার টাকা ও ফিরোজ স্টোরকে ৫ হাজার টাকা।

বুধবার (১১ মে) দুপুরে জেলার ত্রিশাল উপজেলার বিভিন্ন বাজার থেকে অভিযান চালিয়ে এসব জরিমানা করা হয়। জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক নিশাত মেহের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সম্প্রতি এক ক্রেতার কাছ থেকে মেসার্স তামিম এন্টারপ্রাইজ ১৬০ টাকার সয়াবিন তেলের বোতল ২০০ টাকা দাম রাখে। পরে ওই ক্রেতার লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মেসার্স তামিম এন্টারপ্রাইজকে ২০ হাজার জরিমানা আদায় করা হয়। এ সময় অভিযোগকারী ভোক্তাকে প্রণোদনা হিসেবে জরিমানার ২৫ শতাংশ ৫ হাজার টাকা দেয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, মূল্য তালিকা না টানানো, বেশি দামে পণ্য বিক্রি ও পণ্য সংরক্ষণ করায় দোকান থেকে এবং এছাড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য উৎপাদনের অপরাধে রূপকথা রেস্টুরেন্ট ও ফিরোজ সেন্টার থেকে জরিমানা আদায় করা হয়। এসময় বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের গোডাউন দেখা হয়েছে। তবে, সয়াবিন তেল পাওয়া যায়নি। জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

বাজারে অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, র‍্যাব ১৪’র কোম্পানি কমান্ডার মেজর আখের মুহম্মদ জয়, সহকারী পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেন উপজেলা সেনিটারী ইন্সপেক্টর মো, আবু বকর ছিদ্দিকসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com