সয়াবিনের পর এবার অস্থির পেঁয়াজের বাজার - বাংলা একাত্তর সয়াবিনের পর এবার অস্থির পেঁয়াজের বাজার - বাংলা একাত্তর

রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৭:৩১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ঢাকা হয়ে আগরতলা থেকে কলকাতা বাস চলবে ১০ জুন থেকে ধৈর্য পরীক্ষায় এত বড় পাশ দিলাম, ছোটমোটো প্রাইজে চলবে না: পরিমণি মেয়েকে উ’ত্ত্যক্ত করায় ব’খাটেকে প্রকাশ্যে লা’ঠি পে’ঠা করলেন মা অনুষ্ঠানে দাওয়াত না পেয়ে শিক্ষকদের পেটালেন চেয়ারম্যান ফেসবুকে প্রথম দেখাতেই প্রেম; ‘মেঘনা’ ভেবে পুরুষকে বিয়ে করল যুবক সিজার ছাড়াই ১২ ঘণ্টায় ৬ নবজাতকের স্বাভাবিক প্রসবে অনন্য রেকর্ড! মায়ের মৃত্যুতে হতাশ হয়ে নদীতে ফেলে দিলেন নিজের দেড় কোটির টাকার গাড়ি চরম সর্বনাশের মুখে কঙ্গনা! বিদ্যুৎ কর্মকর্তার গ’লায় ছু’রি ঠেকিয়ে বিচ্ছিন্ন সংযোগ জোড়া লাগালেন গ্রাহক সরকারি সুবিধা নিতে নিজের স্ত্রীকেই ফের বিয়ে করলেন ছাত্রনেতা!
সয়াবিনের পর এবার অস্থির পেঁয়াজের বাজার

সয়াবিনের পর এবার অস্থির পেঁয়াজের বাজার

সয়াবিনের পর এবার অস্থির হয়ে উঠেছে পেঁয়াজের বাজার। নতুন করে আমদানি অনুমতি (আইপি) না মেলায় হিলি সীমান্তে সারি সারি পেঁয়াজের ট্রাক আটকা পড়ায় দেশের বৃহৎ পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে বস্তাপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে তিন শ’ টাকা। ব্যবসায়ীরা জানান, আগের যে আমদানি অনুমতি ছিল সেটার মেয়াদ গত মাসের ৫ তারিখে শেষ হয়ে যায়। এরপর নতুন করে আমদানি অনুমতি না পাওয়ায় সীমান্তে অপেক্ষায় থাকা পেঁয়াজভর্তি ট্রাক দেশে প্রবেশ করতে পারছে না। ফলে সরবরাহ সঙ্কটে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে বলে ব্যবসায়ীদের দাবি।

দেশের বৃহত্তর পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈদের আগে ২৭ টাকায় বিক্রি করা ভারতীয় পেঁয়াজ এখন ৩৩ থেকে ৩৪ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সে সাথে বেড়েছে দেশী পেঁয়াজের দামও। পাইকারিতে বস্তাপ্রতি (৫০ কেজি) ভারতীয় পেঁয়াজে তিন শ’ টাকা ও দেশী পেঁয়াজের ২৫০ টাকা বেড়েছে বলে সূত্র জানায়। নতুন করে আইপি ইস্যু না হলে বাজার আরো অস্থির হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

ভারত থেকে পেঁয়াজ আসা বন্ধ : দিনাজপুর সংবাদদাতা জানান, দিনাজপুর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি অনুমতির (আইপি) মেয়াদ শেষ হওয়ায় টানা চার দিন ধরে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। আমদানি বন্ধ থাকলে আসন্ন কোরবানি ঈদে পেঁয়াজের দাম ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার আশঙ্কা করছেন পাইকারি ব্যবসায়ীরা।

গত ৫ মে আইপি মেয়াদ শেষ হওয়ায় এই স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। নতুন করে আইপি না পাওয়া পর্যন্ত পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকবে বলে জানান আমদানিকারকরা। তবে স্থানীয় আড়তগুলোয় পেঁয়াজের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় দাম বাড়ার আশঙ্কা নেই বলে জানান তারা। হিলি কাস্টমসের তথ্য মতে, গত ২৯ মার্চ থেকে ৫ মে পর্যন্ত ভারত থেকে ২০১টি ট্রাকে ৫ হাজার ৫৬২ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে।

হিলি স্থলবন্দরের পাইকারি ব্যবসায়ী মুশফিকুর রহমান বলেন, পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকলে বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়বে। কারণ আমদানি না থাকলে দাম বাড়া স্বাভাবিক। কোরবানি ঈদে পেঁয়াজের দাম বাড়ার শঙ্কা রয়েছে বলেও জানান তিনি। হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন বলেন, আইপি মেয়াদ শেষ হওয়ার কারণে আমরা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে পারছি না।

গেল ৫ মে আমাদের আইপি মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। হিলি স্থলবন্দর অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা ইউসুফ আলী বলেন, পেঁয়াজ আমদানি আইপি অনুমোদন সরকারিভাবে গত ২৯ মার্চ পর্যন্ত থাকলেও রমজান মাসে বাজার স্বাভাবিক রাখতে সরকার আইপি মেয়াদ ৫ মে পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়। নতুন করে অনুমোদন না থাকায় এই বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি করতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com