রাতারাতি ফলের বাজারে আগুন - বাংলা একাত্তর রাতারাতি ফলের বাজারে আগুন - বাংলা একাত্তর

রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন

রাতারাতি ফলের বাজারে আগুন

রাতারাতি ফলের বাজারে আগুন

রোজায় এবারও আগুন ফলের বাজারে। রাতারাতি আঙুর, আপেল, কমলা, মাল্টা ও খেজুরসহ সব প্রকার ফলের দামই বেড়েছে কেজিতে ১০০ টাকা পর্যন্ত। ফল ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমদানি কম আর রোজার শুরুতে চাহিদা অনেক বেশি বলেই ফলের বাজার চড়া। যদিও রাজধানীর বাজার ঘুরে এই দাবির সত্যতা মেলেনি।

এই পরিস্থিতিতে ক্রেতারা ক্ষোভের সঙ্গে জানিয়েছেন, দাম বাড়ানো অজুহাতে শেষ নেই। তাই তারা চান, নিত্যপণ্যের মতো ফলের বাজারেও সরকারের নজরদারি থাকুক।১৭ কোটি মানুষের এদেশে প্রতিদিন বিদেশি ফলের চাহিদা ১৭ লাখ কেজি। তবে রমজানের সময় প্রতিদিনই যে চাহিদা গিয়ে ঠেকে কমপক্ষে ২০ লাখ কেজিতে।

আর চাহিদা বেশি থাকে বলে প্রতিবারই রোজার ফলের বাজারে আগুন লাগবে এটাই যেন স্বাভাবিক। যদিও রাজধানীর অলিগলি থেকে শুরু করে সব ফলের বাজারেই ভরা ফল।এবারও রোজা শুরুর আগের দিনই বেড়ে গেলো আঙুর-আপেল-মাল্টা-কমলা-বেদানা-আনার-নাশপাতি আর খেজুরের দাম।

রাজাধানীর সবচেয়ে বড় ফলের আড়ত বাদামতলীতে, বৃহস্পতিবারও ২০ কেজির কার্টনের যে আঙুর ছিলো দুই হাজার ২০০ টাকা, শুক্রবার সেটি বিক্রি হচ্ছে তিন হাজার৭০০ থেকে চার হাজার টাকা। অর্থাৎ কেজি প্রতি পাইকারিতেই আঙুরের দাম বেড়েছে ৯০ টাকা।

১৪ কেজির মাল্টা কার্টনে ৪০৯ টাকা বেড়ে এই আড়তে বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার ২০০ টাকা। কেজিতে দাম বেড়েছে ৩০ টাকা। এছাড়া, ১৮ কেজির এক কার্টন আপেল দুই হাজার ৮০০ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে তিন হাজার ৭০০ টাকায়। খেঁজুরের দামও বেড়েছে কেজিতে ১০০ টাকা পর্যন্ত।

খুচরায় ফলের দাম বেড়েছে আরও বেশি। রাজধানীর নিউমার্কেটসহ বিভিন্ন খুচরা বাজার থেকে শুরু করে পাড়া-মহল্লার দোকানগুলোতে ফল বিক্রি হচ্ছে ইচ্ছেমতো দামে।শুধু বিদেশি ফলই নয়; দেশি তরমুজও এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজিতে। অসময়ের আম তো বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫৫০ টাকায়।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com