মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন

ছাত্রীর মায়ের সাথে প’রকীয়া করতে গিয়ে ধ’রা খেলেন শি’ক্ষক

ছাত্রীর মায়ের সাথে প’রকীয়া করতে গিয়ে ধ’রা খেলেন শি’ক্ষক

প্রাইভেট পড়াতে গিয়ে ছাত্রীর মায়ের সাথে প্রেমেট সম্পর্ক গড়ে উঠেছিলো এক স্কুল শিক্ষকের। আর এরপর ওই প’রকীয়া প্রেমিকার সাথে দেখা করতো গিয়ে প্রেমিকার স্বামীর হাতে ধরা খেয়েছেন হাসান নামের ওই প্রাথমিক শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার আদমদীঘি উপজে’লার ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়নে। বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হক আবু তিন লাখ টাকার বিনিময়ে বি’ষয়টি রফাদফা করেন।

এ বি’ষয়ে স্থানীয়রা জানায়, উপজে’লার ছাতিয়ানগ্রাম বাজার এলাকার জনৈক তরকারি ব্যবসায়ী মোসলেম উদ্দীনের নবম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে বাড়িতে গিয়ে প্রাইভেট পড়ান ছাতিয়ান গ্রামের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অ’ভিযুক্ত শিক্ষক হাসান। আর সেই সূত্রেই মেয়ের মায়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বি’ষয়টি মেয়ের বাবা জানতে পেরে ওই শিক্ষকের ও’পর নজর রাখেন। একপর্যায়ে প’রকীয়ার টানে ওই শিক্ষক মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীর মায়ের ঘরে প্রবেশ করলে তার স্বামী ঘরের বাহির থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে দিয়ে চি’ৎকার শুরু করেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ওই দিন রাতেই ঘটনাস্থলে এসে আ’টক দুজনের সাথে কথা বলে। কিন্তু র’হস্যজনক কারণে পুলিশ আইনগত কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। পরে দুপুর পর্যন্ত ওই শিক্ষককে আ’টকে রাখার পর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হক আবুর নিকট নেয়া হয় এবং চেয়ারম্যান অ’ভিযুক্ত ওই শিক্ষকের তিন লাখ টাকা জরিমানা করেন ও লিখিত মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেন।

তবে এ বি’ষয়ে ছাতিয়ান গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হক আবুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি টাকা লেনদেন বি’ষয়টি অস্বীকার করেন এবং বলেন শিক্ষককে ফাঁ’সাতে ওই ছাত্রীর পরিবারের এটা একটি চ’ক্রান্ত।

এ বি’ষয়ে আদমদীঘি থানার ওসি জালাল উদ্দীন জানান, তারা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছিলেন।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com