ডাস্টবিনে বসে বই পড়ে বিশ্বকে নাড়িয়ে দিল শিশু হুসাইন! - বাংলা একাত্তর ডাস্টবিনে বসে বই পড়ে বিশ্বকে নাড়িয়ে দিল শিশু হুসাইন! - বাংলা একাত্তর

রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ঢাকা হয়ে আগরতলা থেকে কলকাতা বাস চলবে ১০ জুন থেকে ধৈর্য পরীক্ষায় এত বড় পাশ দিলাম, ছোটমোটো প্রাইজে চলবে না: পরিমণি মেয়েকে উ’ত্ত্যক্ত করায় ব’খাটেকে প্রকাশ্যে লা’ঠি পে’ঠা করলেন মা অনুষ্ঠানে দাওয়াত না পেয়ে শিক্ষকদের পেটালেন চেয়ারম্যান ফেসবুকে প্রথম দেখাতেই প্রেম; ‘মেঘনা’ ভেবে পুরুষকে বিয়ে করল যুবক সিজার ছাড়াই ১২ ঘণ্টায় ৬ নবজাতকের স্বাভাবিক প্রসবে অনন্য রেকর্ড! মায়ের মৃত্যুতে হতাশ হয়ে নদীতে ফেলে দিলেন নিজের দেড় কোটির টাকার গাড়ি চরম সর্বনাশের মুখে কঙ্গনা! বিদ্যুৎ কর্মকর্তার গ’লায় ছু’রি ঠেকিয়ে বিচ্ছিন্ন সংযোগ জোড়া লাগালেন গ্রাহক সরকারি সুবিধা নিতে নিজের স্ত্রীকেই ফের বিয়ে করলেন ছাত্রনেতা!
ডাস্টবিনে বসে বই পড়ে বিশ্বকে নাড়িয়ে দিল শিশু হুসাইন!

ডাস্টবিনে বসে বই পড়ে বিশ্বকে নাড়িয়ে দিল শিশু হুসাইন!

বই মানুষের মনের অন্ধকার দূর করে। বই পড়ে কিংবা কিনে কেউ দেউলিয়া হয়েছে এমন কোন রেকর্ডও নেই। বইকে বলা হয় মানুষের জীবনের সবচেয়ে ভালো বন্ধু। মানুষের জ্ঞানের ভান্ডারকে সমৃদ্ধ করে বই। এমনকি বই ভালো মানুষ হতেও সহায়ক ভূমিকা পালন করে।সিরিয়ান শি’শু হুসাইন। বয়স মাত্র ১০। শরণার্থী হয়ে থাকছে লেবাননে। সম্প্রতি তার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে- হুসাইন একটি ময়লার ডাস্টবিনে বসে খুব মনোযোগী হয়ে বই পড়ছে। তার চ’মৎকার এ মুহূর্তের ছবিটি ক্যামেরাবন্দী করেছেন লেবাননের তরুণ প্রকৌশলী ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক রডারিক ম্যাগামাস। তিনি বৈরুতে তার অফিসের পাশে হুসাইনকে দেখেন পাশে থাকা এক ময়লার ভাগাড়ে বসে বই পড়ছে সে।

রডারিক আলআরাবিয়া ডটনেট’কে বলেন, ‘আমি অন্তত সাত মিনিট দাঁড়িয়ে দেখেছি সে খুব যত্ন ও আবেগ দিয়ে বইয়ের পাতাগুলো উল্টাচ্ছে। তবে সে যে বইটি পড়ছিল তা বাচ্চাদের বই ছিল না। তার সাথে কথা বলে আমি যা বুঝলাম সে খুব মেধাবী।’

রডারিক জানান, হুসাইন প্রতিদিন সকালে স্কুলে যায় ঠিকই কিন্তু দুপুরে স্কুল থেকে ফিরে জীবন সংগ্রামে নামতে হয় তার। চার বোন ও অ’সুস্থ বাবাকে সহযোগিতা করতে স্কুল থেকে ফিরেই নেমে পড়ে ‘টোকাই’য়ের কাজে।

‘আমি একটি সমিতিকে সাথে নিয়ে ইতোমধ্যেই হুসাইন এবং তার পরিবারের সহায়তা করতে একটি আর্থিক ফান্ড সংগ্রহ শুরু করেছি। এজন্য যে তার যেন আর ‘টোকাই’য়ের কাজ করতে না হয় এবং নিজের পড়াশোনার জন্য সম্পূর্ণ স্বাধীনতা পায়।’ বলছিলেন রডারিক ম্যাগামাস।তিনি জানান, হুসাইনের ছবিটি ভাই’রাল হওয়ার পর অনেক মানুষই তাকে সহায়তার পদ্ধতি খুঁজছেন।
সূত্র : আলআরাবিয়া

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com