বৃহস্পতিবার, ২৯ Jul ২০২১, ১১:২০ পূর্বাহ্ন

এ যেন অবিশ্বাস্য ঘটনা, মৃত্যুর ৪৬ বছর পর দেনার টাকা পরিশোধ করলেন সন্তানরা

এ যেন অবিশ্বাস্য ঘটনা, মৃত্যুর ৪৬ বছর পর দেনার টাকা পরিশোধ করলেন সন্তানরা

৪৬ বছর পর পাওনাদারদের টাকা পরিশোধ করলেন দেনাদারের সন্তানেরা। বিশ্বা’স করতে ক’ষ্ট হলেও আজ বৃহস্পতিবার বিকালে সাতক্ষীরা শহরতলীর সুলতানপুর কাজীপাড়ায় ঘটে এ অবিশ্বা’স্য ঘটনা।

খুলনা জে’লার কয়রা থা’নার বধালী গ্রামের নেছার আলী (৫৭) ও সহিদুল ইস’লাম (৫২) জানান, তাদের বাবার নাম জব্বার সরদার। বাবা জব্বার সরদার দেশ স্বাধীনের পর সাতক্ষীরা শহরে থেকে ক্ষুদ্র ব্যবসা করতেন। ১৯৭৫ সালে তীব্র অভাব অনাটন দেখা দিলে তিনি পরিবারের ভরন পোষণের জন্য সুলতানপুর কাজীপাড়ার শেখ নুরুল হকের নিকট থেকে ১৩শ’ টাকা কর্জ গ্রহণ করেন।

গত ২০০০ সালে কর্জ গ্রহীতা জব্বার সরদার মৃ’ত্যুবরণ করেন। মৃ’ত্যুকালে তিনি তার সন্তানদের নাম ঠিকানা দিয়ে তার কর্জ গ্রহণ করা ১৩শ’ টাকা পরিশোধ করে দেয়ার জন্য সন্তানদের অছিয়ত করে যান।

মৃ’ত্যুর পর জব্বার সরদারের স্বজনরা সাতক্ষীরা শহরে এসে শেখ নুরুল হককে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ফিরে যান। ইতোমধ্যে পাওনাদার শেখ নুরুল হক গত ২০১২ সালে মৃ’ত্যুবরণ করেন।

আজ মৃ’ত জব্বার সরদারের দুই ছে’লে সারাদিন মৃ’ত শেখ নুরুল হকের ওয়ারিশদের খোঁজা শুরু করে। দিন শেষে তারা নুরুল হকের তিন কন্যা সন্তানের খোঁজ পান। তারা সেখানে হাজির হয়ে ঘটনার বর্ণনা দেন। এসময় প্রতিবেশীরাও জড়ো হয়ে তাদের মুখ থেকে শোনেন ৪৬ বছর আগে কর্জ গ্রহণের ঘটনা। নুরুল হকের স্বজনরা সেই ১৩শ’ টাকা গ্রহণ করে স্থানীয় জামে ম’সজিদে দান ছদকা করে দেন।

এসময় বাবার ১৩শ’ টাকা দেনা পরিশোধ করে গুনা মাফের দোয়া চাইলেন নেছার আলী ও শহিদুল ইস’লাম। সাতক্ষীরার সুলতানপুর গ্রামের কাজীপাড়া এলাকার মুরব্বীরাসহ সকলে তাদের জন্য দোয়া করেন। সততার এমন নজির বিহীন ঘটনায় স্থানীয় মানুষও হয়ে পড়ে আবেগাপ্লুত।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com