প’রকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্বামীকে হ ত্যা করে লা’শ বাড়ি নিয়ে আসেন স্ত্রী! - বাংলা একাত্তরপ’রকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্বামীকে হ ত্যা করে লা’শ বাড়ি নিয়ে আসেন স্ত্রী! - বাংলা একাত্তর

বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪৯ পূর্বাহ্ন

প’রকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্বামীকে হ ত্যা করে লা’শ বাড়ি নিয়ে আসেন স্ত্রী!

প’রকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্বামীকে হ ত্যা করে লা’শ বাড়ি নিয়ে আসেন স্ত্রী!

স্বামীর ‘হার্ট অ্যাটাকে’ মা’রা গেছেন। তার লা’শ নিয়ে বাড়িতে এসেছেন স্ত্রী, শাশুড়ি ও দাদি শাশুড়ি। কিন্তু লা’শের শরীরে আ’ঘাতের চিহ্ন দেখে স’ন্দেহ হয় পরিবারের। এরপর স্ত্রীসহ তাদেরকে আ’টক করে পুলিশে দেয় নি’হতের পরিবার। পুলিশের জি’জ্ঞাসাবাদে স্ত্রী স্বীকার করেন, প’রকীয়া প্রেমে বা’ধা দেওয়ায় স্বামীকে হ’’ত্যা করেছেন তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রেমিক।

এমন ঘটনা ঘটেছে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজে’লার কাজলা গ্রামে। সাগড়দিঘী পুলিশ ত’দন্ত কেন্দ্রের ই’নচার্জ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান আ’টককৃতদের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানান। নি’হত প্রতীক হাসান ওই গ্রামের বিল্লাল মিয়ার ছেলে। দুই বছর আগে পার্শ্ববর্তী ঘোনারদেউলী গ্রামের লেবু মিয়ার মেয়ে লিজা আক্তারকে বিয়ে করেন।

স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকার সাভারে বসবাস ও পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন তিনি। গ্রে’প্তারকৃতরা হলেন- স্ত্রী লিজা আক্তার, নি’হতের শাশুড়ি ফাতেমা ও দাদি শাশুড়ি লাকি আক্তার। মঙ্গলবার আ’দালতের মাধ্যমে তাদেরকে জে’লহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান বলেন, নি’হতের লা’শ ম’য়নাত’দন্তের জন্য ম’র্গে প্রেরণ করা হয়েছে। লিজার বক্তব্য অনুযায়ী লিজা এবং প’রকীয়া প্রেমীক শাহীন শ্বা’সরো’ধ করে তার স্বামী প্রতীক হাসানকে হ’’ত্যা করেছে। ঘটনাটি আশুলিয়া থানা এলাকায় ঘটেছে।

তাই আমরা লিজাসহ আ’টক আরো দুইজনকে আশুলিয়া থানা পুলিশোর কাছে হস্তান্তর করেছি। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) প্রতীক হাসানের বাবা বিল্লাল হোসেন বা’দী হয়ে আশুলিয়া থানায় মা’মলা করেছেন বলে জানান তিনি।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক কায়সার হামিদ জানান, লিজা তার প্রেমিক শাহীনসহ চারজনকে আ’সামি করে মা’মলা হয়েছে। লিজা, লিজার মা ফাতেমা ও দাদি লাকিকে গাজীপুর আ’দালতে মাধ্যমে জে’ল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আ’সামি লিজার প্রেমিক শাহীন প’লাতক রয়েছেন। তাকে গ্রে’প্তারের চেষ্টা চলছে।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com