‘এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মায়ের ঘরে না জন্মে’, অসহায় বাবার আর্তনাদ - বাংলা একাত্তর‘এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মায়ের ঘরে না জন্মে’, অসহায় বাবার আর্তনাদ - বাংলা একাত্তর

সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৩১ অপরাহ্ন

‘এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মায়ের ঘরে না জন্মে’, অসহায় বাবার আর্তনাদ

‘এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মায়ের ঘরে না জন্মে’, অসহায় বাবার আর্তনাদ

সম্পত্তি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলে ছেলের কর্মকাণ্ডে আ’তঙ্কিত হয়ে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন সিলেটের শাহি ঈদগার হাজারীবাগ এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ আলী কাদর নামের এক বাবা। নিজের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরে আলী কাদর বলেন, ‘মৃত্যুর পর ছেলে যেন আমার মুখ না দেখে। এমন কুলাঙ্গার সন্তান যেন কোনো বাবা-মায়ের ঘরে না জন্মে।’

শনিবার তিনি সংবাদ সম্মেলন করে এই দাবি জানান। নগরীর সুপরিচিত ওই ব্যবসায়ী দাবি করেন, সম্পত্তি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখলের জন্য তার বড় ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। মিথ্যা মামলায় নিজের ছোট ভাই ও বোনকে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন এবং তাকে গুম ও মাদক মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন। ছেলের অব্যাহত হুমকিতে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে গোটা পরিবার।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন তার স্ত্রী রুকসানা বেগম ও ছোট ছেলে আব্দুল মুমিনসহ পরিবারের কয়েকজন সদস্য।

সেমিফাইনালের দিন কী ঘটেছিল পাকিস্তানের ড্রেসিংরুমে?
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫ উইকেটে হেরে যাওয়ার পর পাকিস্তানি খেলোয়াড়রা ‘সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে।’ এমনটাই বলছেন পাকিস্তানের ব্যাটিং পরামর্শদাতা ম্যাথু হেডেন। তিনি আরো জানিয়েছেন, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিরুদ্ধে উদ্বোধনী ম্যাচ জেতার পরে ‘ড্রেসিংরুমের’ পরিবেশটা ছিল

একেবারেই অন্য রকম। পাকিস্তান সেমিফাইনালের আগে গ্রুপ পর্বে তাদের সবকটি ম্যাচ জিতেছিল। সে কারণেই তাদের সাজঘরের পরিবেশটাও ছিল অন্য রকম। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার কাছে হৃদয় বিদারক হারের পর সেই ছবিটা যে কত তাড়াতাড়ি বদলে গেছে সেটাই ব্যাখ্যা করলেন দেলর ব্যাটিং পরামর্শদাতা ম্যাথু হেডেন। বোলিং কোচ ভার্নন ফিল্যান্ডারের সাথে আলাপচারিতায় হেডেন
বলেছেন, ‘ড্রেসিংরুমে খেলোয়াড়দের দেখে আমি অবাক হই না কারণ আপনি যখন মন দিয়ে খেলেন এবং হেরে যান তখন এমনটাই হয়। আপনি যখন প্রত্যাশা নিয়ে ম্যাচ খেলতে যান এবং কোনও কারণে ফল ভালো হয় না, তখন হৃদয়টা কেমন ভেঙে যায় তা দৃশ্যমান ছিল।

খেলোয়াড়দের একেবারে হতাশ দেখাচ্ছিল।’ পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) পক্ষ থেকে হেডেনের কথোপকথনের একটি ফুটেজ আপলোড করা হয়েছে সেখানেই নিজের মনের কথা জানিয়েছেন দলের ব্যাটিং পরামর্শদাতা। হেইডেনকে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের জন্যই ব্যাটিং পরামর্শক নিযুক্ত করা হয়েছিল। হেইডেন বলেছিলেন যে ভারতের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ের সময় তিনি সম্পূর্ণ ভিন্ন পাকিস্তান দলকে দেখেছিলেন।
অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ওপেনার বলেন, ‘ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচটি দেখার সময়, বহিরাগত হিসেবে, ড্রেসিংরুমের দৃশ্য ছিল সম্পূর্ণ আলাদা, খেলোয়াড়দের খুব শান্ত, বেশ ‘রিল্যাক্সড’ দেখাচ্ছিল, খুব ভারসাম্যপূর্ণ ছিল। এটি এমনই একটি দুর্দান্ত ম্যাচ ছিল।’ তিনি আরো বলেন, ‘সেমিফাইনালে ফিল্ডিং বিভাগটা আমাদের জন্য কিছুটা ব্যয়বহুল প্রমাণিত হয়েছিল।’সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com