অভিনেতা উজ্জ্বলের স্ত্রী আর নেই - বাংলা একাত্তরঅভিনেতা উজ্জ্বলের স্ত্রী আর নেই - বাংলা একাত্তর

বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন

অভিনেতা উজ্জ্বলের স্ত্রী আর নেই

অভিনেতা উজ্জ্বলের স্ত্রী আর নেই

বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মেগাস্টার’ উজ্জ্বলের স্ত্রী মেরিনা আশরাফ বিউটি আর নেই। বুধবার দিবাগত রাত ৩টা ৫৯ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। তার বয়স ছিল ৫২ বছর। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন অভিনেতা উজ্জ্বল নিজেই।

তিনি বলেন, দুই সপ্তাহে আগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন মেরিনা। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছিল তাকে। সেখানে তিনি মারা যান।
তিনি আরও বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মেরিনা আশরাফ কিডনি জটিলতায় ভুগছেন। সম্প্রতি তার লাঞ্চে ইনফেকশন ধরা পড়ে। সে কারণে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছিল।

আজ বাদ আছর গুলশান জামে মসজিদে উজ্জ্বলের স্ত্রীর জানাজা নামাজের পর তাকে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে বলে জানান উজ্জ্বল।

টাকা দিয়ে নলকূপ না পেয়ে লাঠি হাতে চেয়ারম্যানের অফিসে বৃদ্ধ, ভাইরাল ভিডিও
যশোরের মণিরামপুর উপজে’লায় বাঁশের লা’ঠি হাতে খিস্তি-খেউড় করছেন এক বৃ’দ্ধ। একবার কারও দিকে তেড়ে যাচ্ছেন, আবার সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামছেন। এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে যশোরের মণিরামপুর উপজে’লা পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। আর্সেনিকমুক্ত টিউবওয়েল বসানোকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত হয়েছে বলে জানা গেছে। বৃ’দ্ধের নাম আকরাম হোসেন (৬০) মণিরামপুর উপজে’লার রাজগঞ্জের হানুয়ার এলাকার বাসিন্দা।

আকরাম হোসেন বলেন, বাড়িতে আর্সেনিকমুক্ত টিউবওয়েল বসানোর জন্য প্রায় ২ বছর আগে উপজে’লা চেয়ারম্যান নাজমা খানমকে ১১ হাজার টাকা দিই। টাকা দেয়ার পর থেকে বেশ কয়েকবার তার কাছে যাই। কিন্তু আজকাল বলে টালবাহা’না করতে থাকেন। আমি বৃ’দ্ধ এবং দরিদ্র মানুষ। রাজগঞ্জ থেকে উপজে’লা পরিষদে যেতে ৭০ থেকে ৮০ টাকা খরচ হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান আমার টিউবওয়েল দিচ্ছেন না।

তিনি আরও বলেন, সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে আমি তার কার্যালয়ে যাই। সেখানে টিউবওয়েলের কথা জানাই। কোনও সাড়া না পেয়ে জো’রে কথা বললে চেয়ারম্যানের স্বামীসহ কয়েকজন যুবক আমাকে মা’রধর শুরু করেন। তাদের হাত থেকে বাঁ’চতে সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামলে আমাকে ঘিরে ধরেন।

বাঁশের লা’ঠি দিয়ে মা’রতে চাইলে কে’ড়ে নিয়ে তাদের মা’রতে উদ্যত হই। পরে সেখান থেকে চলে আসি। তবে তারা আমাকে চ’ড়, ঘু’সি ও লা’থি মে’রেছে। তবে টিউবওয়েলের বি’ষয়টি আমি স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের জানিয়েছি। তারাও নাজমা খানমকে অনুরোধ করেছেন। তাতেও কাজ হয়নি।

এই অ’ভিযোগ বি’ষয়ে উপজে’লা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম বলেন, আমি এই ব্যক্তিকে চিনি না। সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে পরিষদে হঠাৎ করে হাজির হন। আসার পর উল্টাপাল্টা কথা বলতে থাকেন। তার কাছ থেকে ৬৫ হাজার টাকা নেয়ার কথা উল্লেখ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও ছাড়া হয়েছে। এটি সঠিক নয়।

তবে নলকূপ নিতে ১০ হাজার ২০০ টাকা স’রকারি খরচ দিতে হয়। উপজে’লা পরিষদে ১০০ মানুষ নলকূপের আবেদন করেছেন। সেগুলো তো একবারেই দেয়া সম্ভব নয়। একেকটি করে দিতে হবে। সুত্রঃ আরটিভি নিউজ

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com