বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

মি’থ্যা মা’মলায় আ’টক নেতা–কর্মীদের মু’ক্তি না দিলে ক্ষো’ভের বি’স্ফোরণ হলে দায় সরকারের

মি’থ্যা মা’মলায় আ’টক নেতা–কর্মীদের মু’ক্তি না দিলে ক্ষো’ভের বি’স্ফোরণ হলে দায় সরকারের

ফাইল ছবি

হেফাজতে ইসলামের নেতা-কর্মীরা দীর্ঘদিন মি’থ্যা মা’মলায় জে’লে আ’টক রয়েছেন। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষো’ভের সৃষ্টি হচ্ছে। এ ক্ষো’ভের বি’স্ফোরণ হলে এর দায় স’রকারের ও’পরই বর্তাবে। আজ রোববার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো

এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী। বিবৃতিতে শীর্ষ ওলামায়েকেরামসহ গ্রে’প্তার হেফাজতে ইসলামের নেতা–কর্মীদের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন জুনায়েদ বাবুনগরী।

বিবৃতিতে বাবুনগরী বলেন, ‘বিনা দোষে আজ দেশের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়েকেরাম জে’লখানায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন। গ্রে’প্তার ওলামায়েকেরামের মধ্যে অনেকেই বয়োবৃ’দ্ধ ও শা’রীরিকভাবে অ’সুস্থ। জে’লখানার ক’ষ্ট সহ্য করতে না পেরে মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবীবসহ অনেক ওলামায়েকেরাম অ’সুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে খবর পেয়েছি।’ মানবিক বিবেচনায় গ্রে’প্তার সব নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিয়ে কওমি মাদ্রাসা খুলে দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, জে’লখানায় আ’টক থাকা ওলামায়েকেরাম কোনো অন্যায় অ’পরাধের সঙ্গে জ’ড়িত নন। তাঁরা মাদ্রাসায় কোরআন-হাদিসের পাঠদানে নিমগ্ন থাকতেন। মানুষের ইমান-আকিদা বিশুদ্ধকরণে ওয়াজ-নসিহত করতেন। দেশের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য সর্বসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করতেন। আজ তাঁদেরকে দো’ষী সাজিয়ে দীর্ঘদিন জে’লখানায় ব’ন্দী রাখা হয়েছে। ওলামায়েকেরামের সঙ্গে সর্বস্তরের মানুষের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে।

সমাজের সবার কাছে শ্রদ্ধার পাত্র তাঁরা। তাই অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে দেশের সব কওমি মাদ্রাসা খুলে দিয়ে এবং সব নেতা–কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে স’রকার, প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানানো হয়। সুত্রঃ প্রথম আলো

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Comments are closed.

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 banglaekattor.com